মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

এক নজরে

্্কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলা একটি ঐতিহাসিক উপজেলা। এখানে বীর ঈশা খাঁ, চন্দ্রাবতীর  মত গুনীজনের বাসস্থান। এই উপজেলার উত্তরে নান্দাইল উপজেলা, দক্ষিণে কটিয়াদী ও পাকুন্দিয়া, পূর্বে করিমগঞ্জ উপজেলা ও তাড়াইল উপজেলা, পশ্চিমে হোসেন পুর ও নান্দাইল উপজেলা। ১১টি  ইউনিয়ন ও ১টি প্রথম শ্রেণীর পৌরসভা নিয়ে গঠিত কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলা। এ উপজেলা ৯ নং কৃষি পরিবেশ অঞ্চলের অন্তর্ভুক্ত। অত্র উপজেলার উপর দিয়ে নরসুন্দা প্রবাহিত হয়েছে যা এককালে ছিল স্রোতস্বিনী, আজ তা মৃত প্রায়। রয়েছে ছোট বড় অনেক খাল বিল। এককালে এই উপজেলায় প্রচুর পাট ও আখ উৎপাদন হত। পাটের বহু বাজার বিদ্যমান ছিল। কালের বিবর্তনে ইহা লোপ পেয়ে দখল করে নিয়েছে  উফশী জাতের ধান। বর্তমানে আবার পাটের আবাদ ক্রমে বৃদ্ধি পাচ্ছে। অত্র উপজেলায় মহিনন্দ, মাইজখাপন ও মারিয়া ইউনিয়নে প্রচুর শাক সবজীর আবাদ হয়। আউশ মৌসুমে প্রায় ৮,৭০০ হেক্টর, আমন মৌসুমে প্রায় ১০,৬০০ হেক্টর এবং বোরো মৌসুমে ৮,৯০০ হেক্টর জমিতে ধান আবাদ হয়ে থাকে। এ ছাড়া অন্যান্য ফসলের আবাদও দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। তবে রবি মৌসুমে শাকসবজী, ডাল, তেল, মসলা, ভুট্টা আবাদ দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলা কৃষি  সম্প্রসারণ অধিদপ্তর বিভিন্ন প্রকল্পের আওতায় অনেক কৃষক কৃষাণীদের প্রশিক্ষণ দিয়ে আধুনিক  চাষাবাদে গুরুত্বপূর্ন অবদান রাখছে। অত্র উপজেলায় ৩৪টি কৃষি ব্লক রয়েছে এবং সংশ্লিষ্ট উপ-সহকারী কৃষি অফিসারগণ সক্রিয় ভুমিকা রেখে আধুনিক কৃষি প্রযুক্তি চাষীদের দোরগোড়ায় পৌছে দিয়ে শস্য উৎপাদনে বিশেষ ভুমিকা রাখছে। বিভিন্ন প্রকল্পের কার্যক্রম বাস্তবায়নের মাধ্যমে অত্র উপজেলায় কৃষি উন্নয়নের গতিধারা অব্যাহত রেখে ও মাঠ পর্যায়ে সকল স্তরের কর্মকর্তাদের আন্তরিক প্রচেষ্টার মাধ্যমে কাঙ্খিত লক্ষ্য অর্জন সম্ভবপর হবে বলে আশা করা যায়।

 উপজেলা কৃষি অফিসার
কিশোরগঞ্জ সদর, কিশোরগঞ্জ

ছবি


সংযুক্তি



Share with :

Facebook Twitter